আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০১৭ উদযাপন


স্থানঃ জেনেসিস সেন্টার।
তারিখঃ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭।
সময়ঃ বিকাল ৫:৩০মি

দেখো, এটা আমার শহীদ মিনার। আমার বায়ান্নর প্রাপ্তি, আজীবনের গর্ব। এই যে এখানে উঁচু মিনারটি দেখছো এটি আমার মায়ের। মা দাড়িয়ে দেখছে যেন আর কোন দস্যু তাঁর সন্তানের ভাষা কেড়ে নিতে না পারে। আমরাই সেই জাতি, একমাত্র আমরাই দিয়েছি রক্ত, মায়ের ভাষার জন্য। বাঙ্গালী আমরা একুশের গর্ব নিয়ে পৃথিবী ছেড়ে গ্রহ-গ্রহান্তরেও যেতে পারি। এই ইউনিভার্সে একমাত্র আমরাই একাজটি সফলভাবে করেছি। ভাষার জন্য রক্ত শুধু আমরাই দিয়েছি। একুশের শুধুমাত্র এবং কেবলমাত্র আমরাই সোল এজেন্ট।

একুশের প্রহর আগত, বিকাল ৬:০০। অত্যধিক শীত বাইরে। অবিরাম তুষারপাত হচ্ছে। কী আশ্চর্য! এত প্রতিকূলতার মাঝেও শত শত পরিবার বাচ্চাকাচ্চা নিয়ে জেনেসিস সেন্টারে হাজির ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭। গেটের ভিতরে সবাই এখন - খালি পা, হাঁতে ফুলের তোড়া, মুখশ্রী কাঠিন্যযুক্ত কিন্তু দুঃখী দঃখী। একইসাথে দুঃখ আর আনন্দের সম্মিলন পুরো অবয়বে আর কোথায় পাওয়া যাবে? শহীদ মিনারটি ঠিক গেটের সামনেই। ছয়টা বাজার সাথে সাথেই শিশু-কিশোররা একপাশে গলাছেড়ে গেয়ে উঠছে, ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারী আমি কী ভুলিতে পারি‘। সে সাথে অপেক্ষমান জনতা ধীর পায়ে পার হয়ে যাচ্ছে শহীদ মিনার একে একে, হাতের ফুলের তোড়া ভক্তিভরে মিনারের পাদদেশে রেখে। কেউ কেউ নিঃশব্দে পার হচ্ছে। কেউ বজ্র কণ্ঠে গেয়েও ফেলছে, ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারী......‘। আবার কারও কারো চোখ ভিজেও যাচ্ছে।

আসুন ঘটিয়ে ফেলি ঐদিন।

  • বিকাল-ফেরির পর ক্যালগেরি বাংলা স্কুলের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
  • ক্যালগেরি-প্রবাসী আবু সাইদ লিপু এর সদ্য প্রকাশিত বই ‘নিজেকে হারায়ে খুঁজি’ এর মোড়ক উন্মোচন।
  • ক্যালগেরি-প্রবাসী লতিফুল কবির এর প্রকাশিত বই ‘টনির আমেরিকা প্রত্যাবর্তন’ এর মোড়ক উন্মোচন।